আইনি সীমা লঙ্ঘন করে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করার কারণে রাষ্ট্রায়াত্ব ব্যাংক সোনালী ব্যাংককে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

  

আইনি সীমা লঙ্ঘন করে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করার কারণে রাষ্ট্রায়াত্ব ব্যাংক সোনালী ব্যাংককে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।


আর্থিক খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি একই কারণে এর আগে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক, এনআরবি ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক ও প্রিমিয়ার ব্যাংককে জরিমানা করেছিল।


সোনালী ব্যাংক সম্প্রতি ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) মাধ্যমে ৫০০ কোটি টাকা ঋণ দেয়।


এই ঋণ দেওয়ার কারণে শেয়ারবাজারে ব্যাংকটির বিনিয়োগ আইনি সীমা ছাড়িয়ে যায়। যে কারণে ব্যাংকটির কাছে এ সংক্রান্ত ব্যাখ্যা তলব করা হয়েছিল।


ব্যাংকটি ব্যাখ্যাও দিয়েছিল। কিন্তু ব্যাংকের জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় জরিমানার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক।


সোমবার (২২ নভেম্বর) সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আতাউর রহমান প্রধান বরাবর পাঠানো এক চিঠির সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।


এ বিষয়ে সোনালী ব্যাংকের এমডি গণমাধ্যমকে বলেন, আইসিবিকে দেওয়া ঋণের মেয়াদ পূর্তি হয়েছিল। এখন আবার নতুন করে ঋণ দেওয়া হয়েছে। এখানে শেয়ারবাজারে সরাসরি কোনো বিনিয়োগ করা হয়নি।


প্রসঙ্গত, গত বছরের মার্চে পুঁজিবাজারকে চাঙ্গা করতে ২০০ কোটি টাকার ‘বিশেষ তহবিল’ গঠন করেছিল রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংক।


বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুযায়ী শেয়ারবাজারে কোনো ব্যাংকের বিনিয়োগ ওই ব্যাংকের আদায়কৃত মূলধন, শেয়ার প্রিমিয়াম, বিধিবদ্ধ সঞ্চিতি ও রিটেইন আর্নিংসের ২৫ শতাংশের বেশি হতে পারবে না।


কিন্তু আইসিবিকে টাকা দেওয়ায় সোনালী ব্যাংকের বিনিয়োগ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬ দশমিক ৬০ শতাংশে। এই আইন পরিপালনে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ২০১৩ সালে যে প্রজ্ঞাপন জারি করে তা মানা হয়।


ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, শেয়ারবাজার কার্যক্রমে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে নিয়োজিত অপর কোনো কোম্পানি বা স্টক ডিলারকে দেওয়া ঋণের স্থিতি, মঞ্জুরিকৃত ঋণসীমা ও তাদের সঙ্গে রক্ষিত তহবিলের স্থিতি ২৫ শতাংশের হিসাবের মধ্যে পড়বে।


২০১৭ সালে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিদর্শনে ধরা পড়ে, আইসিবিসহ শেয়ারবাজারে সোনালী ব্যাংক যে বিনিয়োগ করেছে, তা ২৫ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে।


এরপর ২০১৮ সালের জুনের মধ্যে বিনিয়োগ ২৫ শতাংশে নামিয়ে আনতে নির্দেশ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক।


ওই সময়ে আইসিবিতে সোনালী ব্যাংকের বিনিয়োগ ছিল দেড় হাজার কোটি টাকা। আইসিবিকে দেওয়া দেড় হাজার কোটি টাকার মধ্যে গত ২৬ আগস্ট ৫০০ কোটি টাকার মেয়াদ পূর্তি হয়। আইসিবি সুদসহ টাকা সোনালী ব্যাংককে তা ফেরত দেয়।


এরপর গত ১৭ অক্টোবর সোনালী ব্যাংকের কাছে আবারও ৫০০ কোটি টাকা ঋণ চেয়ে আবেদন করে আইসিবি।


সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি সোনালী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদনের পর আইসিবিকে চলতি মাসে ৫০০ কোটি টাকা ঋণ দেয় সোনালী ব্যাংক।


ঋণ দেওয়া প্রসঙ্গে সোনালী ব্যাংকের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মো. মজিবর রহমান বলেন, দেশের উন্নয়নের জন্য পর্যাপ্ত বিনিয়োগ দরকার। এই বিনিয়োগের অন্যতম উৎস ক্যাপিটাল মার্কেট।


তিনি বলেন, দেশের ক্যাপিটাল মার্কেটের উন্নয়ন ছাড়া দীর্ঘমেয়াদি ও বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রায় অসম্ভব। এ কারণে সোনালী ব্যাংক শেয়ার মার্কেটকে টেকসই করতে বিভিন্নভাবে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে।

Bangladesh Bank has fined state-owned bank Sonali Bank Tk 10 lakh for investing in the stock market in violation of legal limits.


The financial regulator had earlier fined NRB Commercial Bank, NRB Bank, Exim Bank and Premier Bank for the same reason.


Sonali Bank recently lent Tk 500 crore through Investment Corporation of Bangladesh (ICB).


Due to this lending, the bank's investment in the stock market goes beyond the legal limits. That is why an explanation was sought from the bank.


The bank also explained. But the central bank decided to impose a fine as the bank's response was not satisfactory.


The information came in a letter sent to Sonali Bank Managing Director (MD) Ataur Rahman Pradhan on Monday (November 22).


In this regard, the MD of Sonali Bank told the media that the loan given to ICB had expired. Now a new loan has been given. There is no direct investment in the stock market.


Incidentally, in March last year, the state-owned Sonali Bank set up a 'special fund' of Rs 200 crore to boost the capital market.


According to Bangladesh Bank sources, according to the Banking Companies Act, a bank's investment in the stock market cannot exceed 25 percent of the bank's earned capital, share premium, statutory reserves and retained earnings.


But Sonali Bank's investment has increased to 26.60 percent due to the payment to the ICB. In compliance with this law, the notification issued by the central bank in 2013 is complied with.


According to the circular, the status of loan given to any other company or stock dealer directly or indirectly involved in stock market activities, the approved loan limit and the status of the fund held with them will fall within 25 per cent.


According to the Central Bank's inspection in 2016, Sonali Bank's investment in the stock market, including ICB, has exceeded 25 percent.


Bangladesh Bank then directed to reduce the investment to 25 percent by June 2018.


At that time Sonali Bank's investment in ICB was one and a half thousand crore rupees. Out of the Rs 1,500 crore given to the ICB, Rs 500 crore expired on August 28. ICB refunds the money along with interest to Sonali Bank.


On October 16, the ICB again applied for a loan of Tk 500 crore from Sonali Bank.


Following the recent approval of the board of directors of Sonali Bank, Sonali Bank has given a loan of Tk 500 crore to the ICB this month.


Sonali Bank Deputy Managing Director in the context of the loan. Mujibur Rahman said adequate investment is needed for the development of the country. One of the sources of this investment is the capital market.


He said implementation of long term and big projects is almost impossible without development of the country's capital market. Due to this Sonali Bank is playing an active role in various ways to make the share market sustainable.

Post a Comment

0 Comments