অষ্টম শ্রেণি কর্ম ও জীবনমুখী শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১। ৫ম সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১

  

বিদ্যালয়ের পাঠাগারে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছে। খ. শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করছে। গ. শ্রেণিতে শিক্ষক পাঠদান করছে। ঘ. শিক্ষক বই বিতরণ করছেন।

ক. বিদ্যালয়ের পাঠাগারে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছে। খ. শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করছে। গ. শ্রেণিতে শিক্ষক পাঠদান করছে। ঘ. শিক্ষক বই বিতরণ করছেন।

এই চারটি চিত্র অংকন করে কোনটি কায়িক শ্রম ও কোনটি মেধাশ্রম এবং কেন?

উত্তর:

মেধাশ্রম

মানুষ তার কাজে চিন্তা-চেতনা, বুদ্ধি ও মেধা ব্যাবহার করায় যে শ্রম দেয় তাকে মেধাশ্রম বলে। অর্থাৎ যে শ্রমে ঘাম ঝরে না তাকে মেধাশ্রম বলে। যেমনঃ সরকারি বেসরকারি দাপ্তরিক (অফিসিয়াল) কাজ, কম্পিউটার। প্রগ্রামিং, বই লেখা, ফ্রি ল্যান্সিং, শিক্ষকতা, পড়ালেখা করা, সাংবাদিকতা, আইন পেশা এবং গান লেখা ইত্যাদি মেধাশ্রম।

শারীরিক বা কায়িকশ্রম

মানুষ তার শারিরীক শক্তি দিয়ে কোনাে কাজে যে শ্রম দেয় তাই শারীরিক শ্রম। যেমনঃ শ্রমিক, ড্রাইভার, মেশিন অপারেটর, কুলি, মিস্ত্রি, কামার, কুমার, মুচি, নাপিত, ধােপা ইত্যাদি শ্রেনীপেশার মানুষের শ্রমই কায়িক শ্রম।

জীবনে বেঁচে থাকার জন্য মানসিক ও শারীরিক দুই প্রকার শ্রমকেই সমান গুরুত্ব দিতে হবে। মানসিক শ্রম মূলত কাজের প্রেরণা যােগায় আর শারীরিক শ্রম তা সমাধান করতে সাহায্য করে।

নিম্নে চারটি ঘটনার চিত্র অঙ্কন করে এগুলর কোনটি কী ধরনের শ্রম তা ব্যাখ্যা করা হলােঃ

বিদ্যালয়ের পাঠাগারে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছে, 
শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করছে,
শ্রেণিতে শিক্ষক পাঠদান করছে ,
শিক্ষক বই বিতরণ করছেন,
এই চারটি চিত্র অংকন করে কোনটি কায়িক শ্রম ও কোনটি মেধাশ্রম এবং কেন?,

ক. বিদ্যালয়ের পাঠাগারে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছে।

বিদ্যালয়ের পাঠাগারে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছে এতে তাদের কোনাে শারীরিক পরিশ্রম হচ্ছে না। তারা কেবল চেয়ারের উপর বসে তাদের মেধা দিয়ে এবং মন দিয়ে বই পড়ছে। এতে তাদের মেধা শ্রম হচ্ছে। তারা অনেক কিছু জানতে পারছে।কিন্তু শুধু বসে থাকায় কোনাে কায়িক পরিশ্রম হয় না কিন্তু পড়ালেখা করলে মস্তিষ্কে এক প্রকার শ্রমের সৃষ্টি হয়। তাই বিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা পাঠাগারে পড়ালেখা করায় তাদের মেধা শ্রম হচ্ছে।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

বিদ্যালয়ের পাঠাগারে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছে, 
শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করছে,
শ্রেণিতে শিক্ষক পাঠদান করছে ,
শিক্ষক বই বিতরণ করছেন,
এই চারটি চিত্র অংকন করে কোনটি কায়িক শ্রম ও কোনটি মেধাশ্রম এবং কেন?,

খ) শিক্ষার্থীরা শ্রেণীকক্ষ পরিষ্কার করছে।

শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করছে এতে তাদের শারীরিক পরিশ্রম হচ্ছে। তারা ঝাড়ু অন্যান্য উপকরণ হাতে শ্রেণীকক্ষ পরিষ্কার করছে ফলে তাদের শক্তি খরচ হচ্ছে। এক্ষেত্রে তাদের পেশি চালনার প্রয়ােজন হচ্ছে। কিন্তু এতে তাদের কোন মেধা খরচ হচ্ছে না। তাই এটি কায়িক শ্রম।।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

বিদ্যালয়ের পাঠাগারে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছে, 
শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করছে,
শ্রেণিতে শিক্ষক পাঠদান করছে ,
শিক্ষক বই বিতরণ করছেন,
এই চারটি চিত্র অংকন করে কোনটি কায়িক শ্রম ও কোনটি মেধাশ্রম এবং কেন?,

গ) শ্রেণীতে শিক্ষক পাঠদান করছেন।

শিক্ষক শ্রেণীতে পাঠদান করছেন এতে তার মেধাশ্রম হচ্ছে।তাকে। পাঠদান করার জন্য অনেক কিছু জানতে হয় অনেক কিছু শিখাতে হয়।তিনি মুখ দিয়ে কথা বলছেন এবং শিক্ষার্থীরা তা শুনছে আর কথা বলায় তার মেধা কাজে লাগাচ্ছেন। এতে তাঁর মেধা শক্তি কাজে লাগছে। তাই শ্রেনীতে শিক্ষকের পাঠদান করা মেধাশ্রম।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

বিদ্যালয়ের পাঠাগারে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছে, 
শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষ পরিষ্কার করছে,
শ্রেণিতে শিক্ষক পাঠদান করছে ,
শিক্ষক বই বিতরণ করছেন,
এই চারটি চিত্র অংকন করে কোনটি কায়িক শ্রম ও কোনটি মেধাশ্রম এবং কেন?,

ঘ) শিক্ষক বই বিতরণ করছেন।

শিক্ষক বই বিতরণ করছেন এতে তার শারীরিক পরিশ্রম হচ্ছে। শিক্ষক বই হাতে নিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরন করছেন ফলে শারীরিক শক্তি। খরচ হচ্ছে। কিন্তু এতে তার কোন মেধা খরচ হচ্ছে না। তাই এটি কায়িক শ্রম।

উপরের চিত্রগুলাে স্পষ্ট বলে দেয় যে, কোনটি মেধাশ্রম এবং কোনটি | কায়িক শ্রম। বাস্তব জীবনে এবং সভ্যতার বিকাশে উভয় শ্রমই সমান | গুরুত্ব বহন করে। কারন একে অপরের পরিপুরক।

৬ষ্ঠ সপ্তাহের এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১


মাধ্যমিক বোর্ড ৬ষ্ঠ শ্রেণি অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১





মাধ্যমিক বোর্ড ৭ম শ্রেণি অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১





মাধ্যমিক বোর্ড ৮ম শ্রেণি অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১






মাধ্যমিক বোর্ড ৯ম শ্রেণি অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১






বিগত কয়েক সপ্তাহের উত্তর লিংক 




    Post a Comment

    0 Comments